ট্রিটমেন্টের সময় কিছু কথা মেনে চলতে হবে

                Patient – দের জন্যে কিছু শর্তাবলি :-

 ট্রিটমেন্ট নেওয়ার সময় পকেট খালি রাখতে হবে এবং mobile phone সুইচ অফ করতে হবে। এর সাথে ঘড়ি, চুরি বা কড়া জাতীয় কিছু পরে থাকলে সেটা খুলে আত্মীয় বাঁ নিজের কাছে উচিত জায়গায় রাখতে হবে। যখন আমরা বুকের হাড়ে ‘Thymus’ নামক ট্রিটমেন্ট দিই, তখন গলাতে চেন বা মঙ্গলসূত্র থাকলে সেটা এমনভাবে রাখতে হবে যাতে therapist ছুঁতে না পারে।

●  ট্রিটমেন্ট সময়েই শুধু নয়, সবসময়ই শোবার সময় পাশ ফিরে শুতে হবে এবং পাশ ফিরেই হাতের সাহায্য নিয়ে উঠতে হবে যাতে পিঠের মাংস-পেশিতে জোর না পরে।

● LMNT treatment এর সময় যতটা সম্ভব পেট খালি রাখতে হবে। স্নানের কমপক্ষে এক ঘণ্টা পরে এবং দুপুরের খাবারের দু-আড়াই ঘণ্টা পরে ট্রিটমেন্ট নেওয়া যাবে। যদি ভারী খাবার খাওয়া হয় তাহলে বেশী gap দিয়ে ট্রিটমেন্ট নেওয়াই ভালো।

কারণ : আমাদের ট্রিটমেন্টের সময় patient-কে বারবার সোজা, পাশ ফেরা, উল্টো হয়ে শোয়া ইত্যাদি করতে হয়। যদি পেট ভর্তি হয় তাহলে এইরকম বারবার করলে অস্বস্তি হতে পারে।

● ট্রিটমেন্ট নেওয়ার সময় প্রয়োজন হলে প্রথমে প্রস্রাব করে bladder খালি করে ট্রিটমেন্ট নিলে বেশী ভালো হবে।

● Therapist থাই এর তলাতে বালিশ লাগানোর সময় কোমড় ওঠানো চলবে না। এছাড়াও therapist থাই এর তলাতে বালিশ লাগানোর সময় পা তোলা চলবে না, কারণ এর থেকে therapist দের চোট লাগতে পারে। Therapist দের ট্রেনিং করানো হয় যাতে সে নিজে থেকেই সব কিছু করতে পারে।

● ট্রিটমেন্টের সময় মাথা তোলা যাবে না। সোজা হয়ে শোওয়ার সময় দরকার না পড়লে মাথার তলাতে বালিশ না রাখাই ভালো। আর therapist দের সাথে বা অন্য কারোর সাথে কথা বলা চলবে না।    

● কখনও কখনও patient বলে থাকেন যে therapist কম ওজন দিচ্ছেন। এই থেরাপীতে আমরা রক্ত নালিকাগুলিকে চাপ দিই, যাতে রক্তের প্রভাব ওই গ্রন্থির দিকে থাকে, যেটা আগে যাচ্ছিল না। এক্ষেত্রে ওজনের কোনো ভুমিকাই নেই। যদি therapist কম ওজনের হয় এবং কম প্রেশার দেয়, কিন্তু যদি সঠিক জায়গাতে হয় তাহলে থেরাপীর result একইরকম প্রভাবশালী হবে।

● সাধারণত আমাদের প্রেসারে ব্যাথা অনুভব হবে না। কিন্তু যদি ব্যাথা লাগে তাহলে therapist কে বলা উচিত যাতে সে নিজের পা রাখার angle বদলে ফেলতে পারে। এতে চিকিৎসার প্রভাব কম হবে না। কিন্তু ব্যাথা হওয়া সত্ত্বেও যদি কেউ না বলে তাহলে ট্রিটমেন্টের পরেও ব্যাথা থাকবে বা দুর্বল মনে হবে।

● মহিলাদের monthly period এর সময় বা অন্য কোনো সমস্যার সময় ট্রিটমেন্ট নেওয়া চলবে না। কিন্তু কিছু সমস্যাতেও monthly period এর সময় ট্রিটমেন্ট নিতে পারেন। যেমন –

® স্রাব অত্যাধিক বেশী হলে।

® স্রাব না আটকালে।

® খুবই কম (scanty) স্রাব হলে।

® Menses এ ব্যাথা ‌ বা clot হলে।

এইসব সমস্যাগুলিকে আমরা নিউরোথেরাপী দ্বারা ঠিক করতে পারি।

● যদি therapist এর সাথে কোনো কথা বলার দরকার হয় তাহলে ট্রিটমেন্টের মাঝে gap থাকলে তখন বলতে হবে। এছাড়া ট্রিটমেন্টের সময় এবং মাঝখানে gap এ নাক দিয়ে লম্বা শ্বাস নিতে হবে এবং নাক দ্বারাই ছাড়তে হবে। এর থেকে কোষে oxygen এবং carbon dioxide এর আদানপ্রদান সঠিকভাবে হবে এবং শরীরের কাজ ভালোভাবে হবে। শরীর যত relax থাকবে এই চিকিৎসার লাভ বেশী ভালোভাবে পাওয়া যাবে।

● ট্রিটমেন্টের পরে নিজের সব জিনিস নিজের কাছে নিয়ে নিতে হবে।  

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *